আজ জিএসটি বৈঠক: রাজ্যগুলির ৬ লক্ষ কোটি রাজস্ব ক্ষতি কেন্দ্রকে পূরণ করতে বলল কংগ্রেস

finance minister Nirmala Sitharaman
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

বাংলাbiz ডেস্ক: ধারাবাহিক অর্থনৈতিক মন্দার দরুন জিএসটি (GST) খাতে রাজ্যগুলির যে ৬ লক্ষ কোটি টাকার মতো রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে তা পুরোপুরি পূরণ করে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রের কাছে আর্জি জানাল কংগ্রেস (Congress)। উল্লেখ্য, আজই জিএসটি কাউন্সিল সদস্যদের বৈঠকে বসার কথা।

জিএসটি ক্ষতিপূরণ আইন (GST Compensation Act) অনুসারে জিএসটি সংগ্রহে বৃদ্ধির পরিমাণ ১৪ শতাংশের কম হলে রাজ্যগুলিকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা। রাজ্যগুলিকে সেই পাওনাও মিটিয়ে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ করেছে কংগ্রেস।

কংগ্রেস নেতা রাজীব গৌড়া, এস মনপ্রীত সিং বাদল (অর্থমন্ত্রী, পঞ্জাব) এবং কৃষ্ণ বায়রে গৌড়া (কর্নাটকের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী) এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, কেন্দ্র যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, তার কমে কোনো অর্থ দেওয়া হলে তাতে ভারতীয় রাজ্যগুলির প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করা হবে।

আরও পড়ুন: ‘আরবিআইয়ের আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে’, কেন্দ্রীয় সরকারকে বিঁধল সুপ্রিম কোর্ট

জিএসটি ক্ষতিপূরণ সেস সংগ্রহ ১০ বছর পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতারা। তাঁরা দাবি করেছেন, কোভিড ১৯ (Covid 19) সামাল দেওয়ার জন্য সব ধরনের ঋণ যেন কেন্দ্র করে। কারণ তারা কম খরচে সম্পদ সংগ্রহ করতে পারে এবং ঋণের বোঝা রাজ্যগুলির তুলনায় ভালো ভাবে বইতে পারে।

কংগ্রেস চায়, কেন্দ্র যেন সেসের উপর নির্ভরতা কমায় এবং রাজ্যগুলির সঙ্গে রাজস্ব যেন ন্যায্য ভাবে ভাগ করে নেয়। “অর্থ কমিশনগুলির দেওয়া কেন্দ্র-রাজ্য তহবিল ভাগাভাগি সূত্রের বাস্তব রূপ দেওয়ার এটাই হল সঠিক সময়”, ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, কেন্দ্রের তালগোল-পাকানো কাজের দরুন কোভিড ১৯ জনিত ধস নামার আগে থেকেই ভারতীয় অর্থনীতি ‘মোদী মন্দা’র অভিজ্ঞতা অর্জন করছিল।

কংগ্রেস বলেছে, কেন্দ্রের ‘অদক্ষতার’ মাশুল গুনতে হবে রাজ্যগুলিকে। সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির সামনে কেন্দ্র যে কথা বলেছিল তার উল্লেখ করেছে দল। কেন্দ্র বলেছিল, বাধ্যতামূলক ভাবে রাজ্যগুলোকে জিএসটি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার যে বিধি রয়েছে, তা দেওয়ার টাকা কেন্দ্রের নেই।

কংগ্রেস নেতাদের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “কোভিড-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাজ্যগুলি রয়েছে প্রথম সারিতে। এই কঠোর সময়ে রাজ্যগুলির সাহায্যের্থে কেন্দ্রীয় সরকারের এগিয়ে আসাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ৬ লক্ষ কোটি টাকার ক্ষতি বইতে হলে রাজ্যগুলোকে তাদের প্রধান প্রধান কর্মসূচি ও নীতি রূপায়ণে খরচ কাটছাঁট করতে হবে। এই সংকট কাটাতে মোদী সরকার কী ব্যবস্থা নিচ্ছেন? এটা খুবই বেদনাদায়ক যে রাজ্যগুলিকে সাহায্য করার জন্য পদক্ষেপ করার বদলে তারা বিশ্বাসঘাতকতার মাটি তৈরি করছে। সহযোগিতামূলক যুক্তরাষ্ট্র ব্যবস্থার জায়গায় তারা দমনমূলক যুক্তরাষ্ট্র ব্যবস্থা নিয়ে আসছে।”       

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.