Connect with us

স্টার্টআপ

উদ্যোগী কেন্দ্র, আগামী ৫-৬ বছরে ১০ হাজার স্টার্টআপকে প্রচারের আলোয় আনার ভাবনা

কেন্দ্রীয় সরকার তার জেনেসিস উদ্যোগের মাধ্যমে আগামী পাঁচ থেকে ছয় বছরে ১০ হাজারেরও বেশি স্টার্টআপকে প্রচারের আলোয় আনতে চাইছে।

Published

on

group of friends hanging out

কেন্দ্রীয় সরকার তার জেনেসিস (GENESIS Gen-Next Support for Innovative Startups)) উদ্যোগের মাধ্যমে আগামী পাঁচ থেকে ছয় বছরে ১০ হাজারেরও বেশি স্টার্টআপকে প্রচারের আলোয় আনতে চাইছে। সম্প্রতি এ কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রের ইলেকট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রকের (MeitY) সচিব অলকেশ কুমার শর্মা।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই শর্মাকে উদ্ধৃত করে বলেছে, ‘‘আমরা এখন পরবর্তী স্তরে চলে যাচ্ছি যেখানে জেনেসিস আসছে। আমরা আগামী পাঁচ থেকে ছয় বছরে ১০ হাজার স্টার্টআপকে প্রচারে আনতে চলেছি।’’

মেইটিওয়াই স্টার্টআপ হাব (MeitY Startup Hub) দ্বারা আয়োজিত একটি ইন্টারঅ্যাক্টিভ অধিবেশনে ভাষণ দেওয়ার সময় শর্মা মন্তব্য করেছিলেন বলে জানা গিযেছে। সেই অধিবেশনে মন্ত্রকের অন্য বরিষ্ঠ আমলারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে কিডএক্স (KidEx), টেরালুমেনস (Teralumens), আইমুমজ (iMumz) , রিকার ক্লাব (Recur Club), আয়ুরিটিম (AyuRhytm)-এর মতো স্টার্টআপের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ভারতে স্টার্টআপের ইতিহাস অবশ্য খুব পুরনো নয়। তবে বিগত কয়েক দশকে এর পালে বাতাস লেগেছে। বেশ কিছু দেশীয় স্টার্টআপ সংস্থা সুনামের সঙ্গে কাজ করছে।

ভারতীয় স্টার্টআপ এবং সেই সংক্রান্ত তহবিলের বিষয়ে একটি প্রশ্নের জবাবে শর্মা বলেন, তহবিল কোনও সমস্যা নয় এবং তিনি তহবিলের জন্য কোনও স্টার্টআপ বন্ধ হতে দেখেননি।

তাঁর দাবি, এর পরিবর্তে তারা (স্টার্টআপ) বিভিন্ন উপায়ে বৃদ্ধির সুযোগ খুঁজছে। অন্য সরকারি কর্মকর্তারা ডিজিটাল ইন্ডিয়া জেনেসিস এবং সমৃদ্ধি সহ সরকারের বিভিন্ন স্টার্টআপ-বান্ধব প্রকল্প এবং প্ল্যাটফর্মের কথা বলেছেন।

আরও পড়তে পারেন : আপনার চেকের পুরো দায়িত্ব আপনারই, এমনকী অন্য কেউ লিখলেও, পর্যবেক্ষণ সুপ্রিম কোর্টের

স্টার্টআপ

স্টার্ট আপ ব্যবসায়ে দেশের সেরা ১০ রাজ্যের অন্যতম বাংলা, দাবি চন্দ্রশেখরের

রাজারহাটে বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার আয়োজিত শিল্প মেলায় এমনই দাবি করলেন বন্ধন ব্যাঙ্কের প্রতিষ্ঠাতা এবং কর্ণধার চন্দ্রশেখর ঘোষ।

Published

on

বাজারে এ রাজ্যের স্টার্ট আপগুলির (Startup) উপস্থিতি হয়তো ততটা নজরে পড়ে না, কিন্তু স্টার্ট আপ (Startup) ব্যবসার ক্ষেত্রে দেশের প্রথম ১০ রাজ্যের মধ্যে অন্যতম বাংলা। এমনই দাবি করলেন বন্ধন ব্যাঙ্কের (Bandhan Bank) প্রতিষ্ঠাতা এবং কর্ণধার চন্দ্রশেখর ঘোষ (Chandra Shekhar Ghosh)। রাজারহাটে বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার (Bengal National Chamber) আয়োজিত শিল্প মেলায় এমনই দাবি করলেন তিনি।

রাজ্যের আশ্বাস

এ দিন মেলায় আলোচনার বিষয় ছিল দক্ষতা বৃদ্ধি, স্টার্ট আপ ইত্যাদি। রাজ্যের কারিগরী শিক্ষামন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন (Indranil Sen) শিল্পমহলকে রাজ্যের তরফে সব রকম সহায়তার আশ্বাস দেন। স্টার্ট আপ সংস্থাগুলিকে বেড়ে ওঠার পথে সাহায্য করতে রাজ্য প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ম্যাকাউট) সঙ্গে মউ সই করে বণিকসভাটি। ভারতের কয়েকটি রাজ্য স্টার্ট-আপ সংস্থার দৌড়ে পশ্চিমবঙ্গের চেয়ে বহু যোজন এগিয়ে, এমন দাবি অহরহ ওঠে। সে কথা মানতে নারাজ এক সময়ে এ ভাবেই ব্যবসার জগতে পা রাখা চন্দ্রশেখর (Chandra Shekhar Ghosh)।

কী বলছেন চন্দ্রশেখর

তার আগে স্টার্ট আপ (Startup) নিয়ে এক আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন বন্ধন ব্যাঙ্কের (Bandhan Bank) কর্ণধার। তাঁর দাবি, রাজ্যে নতুন উদ্যোগের সংখ্যা কম নয়। কিন্তু তারা ততটা নজর কাড়তে পারছে না। সাধারণত এই সব সংস্থা কিছুটা বেড়ে না উঠলে সে ভাবে চোখে পড়ে না। স্টার্ট আপগুলি এই ‘দুর্বলতা’ কাটাতে পারলে রাজ্য এ ক্ষেত্রে পিছিয়ে, এমন চর্চার অবকাশ থাকবে না।

পাশাপাশি নতুন উদ্যোগপতিদের জন্য তাঁর পরামর্শ, ব্যবসার মডেল ঠিক ভাবে তৈরি করতে হবে। বাজারে নিজেদের আস্থা মজবুত করতে হবে। তা না-হলে ব্যাঙ্ক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান সেই প্রকল্পে পুঁজি জোগাতে ভরসা পাবে না। ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ বা পুঁজি জোগাড় করা নিয়ে স্টার্ট-আপ সংস্থা ভোগান্তির শিকার হয় বলে অভিযোগ উঠলেও চন্দ্রশেখরের বক্তব্য, হিসাবের খাতা ভাল ভাবে তৈরি থাকুক। হাল না ছেড়ে আর্থিক ক্ষেত্রের ভরসা কুড়োতে হবে। তাঁর দাবি, ভরসাযোগ্য প্রকল্প হলে ব্যাঙ্ক ঋণ দিতে প্রস্তুত। কারণ সেটাই তাদের ব্যবসা।

আরও পড়ুন: বছরের শেষ কেনাবেচার দিনে অস্থিরতা অব্য়াহত শেয়ার বাজারে

Continue Reading

খবর

ভারতে মহিলা পরিচালিত স্টার্টআপের জন্য সাড়ে ৭ কোটি ডলারের তহবিল গুগলের

মহিলা পরিচালিত স্টার্টআপকে আর্থিক সহযোগিতা। সাড়ে ৭ কোটি মার্কিন ডলারের তহবিল গুগলের।

Published

on

দেশে মহিলা পরিচালিত স্টার্টআপের প্রচারের জন্য সাড়ে ৭ কোটি ডলার খরচ করবে গুগল (Google)। এই ঘোষণা করে গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই (Sundar Pichai) জানিয়েছেন, শীঘ্রই একটি প্রধান রফতানি অর্থনীতি হিসাবে আবির্ভূত হবে ভারত।

পিচাইয়ের প্রত্যাশা, ভারত একটি বড় রপতানি অর্থনীতিতে পরিণত হবে। এর জন্য নাগরিকদের নিরাপত্তা এবং সংস্থাগুলির উদ্ভাবনের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে।

ছোট ব্যবসা এবং স্টার্ট আপগুলিকে সহযোগিতা

গুগল ফর ইন্ডিয়া ২০২২ (Google for India 2022)-এর একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন পিচাই। ওই ইভেন্টে যোগ দিয়ে কেন্দ্রীয় টেলিকম ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করেন তিনি। তবে তাঁদের ওই বৈঠকে কী আলোচনা হয়েছে, তা প্রকাশ্যে আসেনি।

নিজের ভারত সফর শুরু করার আগে পিচাই ব্লগে লেখেন, কীভাবে গুগল ছোট ব্যবসা এবং স্টার্ট আপগুলিকে সহযোগিতা করছে, সে ব্যাপারে তিনি প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে আলোচনা করবেন। সাইবার নিরাপত্তায় বিনিয়োগ করা হচ্ছে। শিক্ষা প্রদান করছে এবং দক্ষতা প্রশিক্ষণ, স্বাস্থ্যসেবা-সহ কৃষির মতো ক্ষেত্রেও এআই (AI) প্রয়োগ করা হচ্ছে।

মহিলা পরিচালিত স্টার্টআপকে আর্থিক সহযোগিতা

গুগলের ইভেন্টে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, ইন্ডিয়া ডিজিটাইজেশন ফান্ড (IDF)-এর একটি অংশ স্টার্টআপগুলিতে ব্যয় করা হচ্ছে। এই তহবিল থেকে এক-চতুর্থাংশ অর্থ মহিলা পরিচালিত সংস্থাগুলিতে বিনিয়োগ করা হবে।

বলে রাখা ভাল, ২০২০ সালের জুলাই মাসে পরবর্তী পাঁচ থেকে সাত বছরে ভারতে ১ হাজার কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিল গুগল। ডিজিটাল পরিষেবা গ্রহণ ত্বরান্বিত করতে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট।

প্রায় সাড়ে তিন বছর পর ভারত সফরে এলেন পিচাই। ভারতে জন্মেছেন পিচাই। তাঁর কথায়, “প্রযুক্তি ব্যাপকভাবে কাজ করছে এবং সারা বিশ্বের মানুষের জীবনে পরিবর্তন আনছে। আমি মনে করি এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ সময়। ভারত শীঘ্রই একটি বড় রফতানি অর্থনীতিতে পরিণত হবে। যা উন্মুক্ত এবং সংযুক্ত ইন্টারনেটের সঙ্গে সজ্জিত হবে। তবে এটাও ঠিক ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে”।

আরও পড়ুন: পেনশনভোগীদের পরিষেবা দিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সঙ্গে মউ স্বাক্ষর বন্ধন ব্যাঙ্কের

Continue Reading

স্টার্টআপ

স্টার্টআপের জন্য বড়ো সুযোগ! এখন ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ মিলবে এই সরকারি স্কিমে

স্টার্টআপের জন্য বড়ো সুযোগ, এখন ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ মিলবে এই সরকারি স্কিমে। জানুন বিস্তারিত…

Published

on

বিবি ডেস্ক: স্টার্টআপের জন্য বড়ো সুযোগ। সেগুলিকে একটি নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত জামানত-মুক্ত ঋণ (collateral-free loan) প্রদানের জন্য ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিমের (credit guarantee scheme) বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম ফর স্টার্টআপস

ডিপার্টমেন্ট ফর প্রমোশন অব ইন্ডাস্ট্রি অ্যান্ড ইন্টারনাল ট্রেড (DPIIT) একটি বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, ৬ অক্টোবর বা তার পরে একজন যোগ্য ঋণগ্রহীতার জন্য অনুমোদিত ঋণ সংক্রান্ত সুবিধাগুলি এই স্কিমের আওতাধীন হিসেবে বিবেচিত হবে। বলা হয়েছে, “ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম ফর স্টার্টআপস (CGSS) অনুমোদন করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যাতে স্টার্টআপ হওয়ার জন্য যোগ্য ঋণগ্রহীতাদের পুঁজি জোগানোর জন্য সদস্য প্রতিষ্ঠানের (MI) মাধ্যমে ক্রেডিট গ্যারান্টি দেওয়া যায়।”

আশা করা হচ্ছে, এই স্কিমটি স্টার্টআপগুলির জন্য প্রয়োজনীয় জামানত-মুক্ত ঋণ তহবিল সরবরাহ করতে সহায়তা করবে। এমআই-এর মধ্যে আর্থিক মধ্যস্থতাকারী (ব্যাঙ্ক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, এনবিএফসি, এআইএফ) অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। যারা ঋণ প্রদান/বিনিয়োগে নিয়োজিত এবং স্কিমের অধীনে অনুমোদিত যোগ্যতার মানদণ্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

কারা এই সুবিধা পাওয়ার যোগ্য

যে সব স্বীকৃত স্টার্টআপ স্থিতিশীল রাজস্ব প্রবাহের পর্যায়ে পৌঁছেছে, যেমন ১২ মাসের মেয়াদে নিরীক্ষিত মাসিক বিবৃতি থেকে মূল্যায়ন করা হয়েছে, তারা এই সুবিধা পাওয়ার জন্য উপযুক্ত। যেগুলি কোনও ঋণ/বিনিয়োগকারী সংস্থার কাছে ঋণ খেলাপি নয় এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নির্দেশিকা অনুসারে নন-পারফর্মিং অ্যাসেট হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ নয়, তারা এই স্কিমের সুবিধা পাওয়ার যোগ্য।

কভারেজের সীমা

বিভাগীয় বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “প্রতি ঋণগ্রহীতার সর্বোচ্চ গ্যারান্টি কভার ১০ কোটি টাকার বেশি হবে না। এখানে যে ক্রেডিট সুবিধাটি কভার করা হচ্ছে, তা অন্য কোনও গ্যারান্টি স্কিমের আওতায় আনা উচিত নয়।”

পরিচালন পদ্ধতি

এই স্কিমের উদ্দেশে যোগ্য ঋণগ্রহীতাদের দেওয়া ঋণ বা ঋণ খেলাপির বিরুদ্ধে অর্থপ্রদানের গ্যারান্টি দেওয়ার উদ্দেশ্যে ভারত সরকার একটি ট্রাস্ট বা তহবিল গঠন করবে। ওই বোর্ডের ট্রাস্টি হিসেবে থাকবে বোর্ড অব ন্যাশনাল ক্রেডিট গ্যারান্টি ট্রাস্টি কোম্পানি লিমিটেড। এছাড়াও ট্রাস্টের বিষয়গুলো তদারকি করার জন্য ডিপিআইআইটি-র গঠিত একটি ব্যবস্থাপনা কমিটি থাকবে। ট্রাস্টের কার্যকারিতা পর্যালোচনা, তত্ত্বাবধান ও পর্যবেক্ষণের জন্য দায়ী থাকবে ওই কমিটি। স্কিম সম্পর্কিত বিস্তৃত নীতি সংক্রান্ত বিষয়ে ট্রাস্টকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেবে তারাই।

আরও পড়ুন: ডলারের তুলনায় রুপির দরপতন নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে চলেছে আরবিআই!

Continue Reading

Trending