ভারতের স্মার্টফোন বাজারকে নয়া দৃষ্টিতে দেখছে Apple

Apple


বিবিডেস্ক: ভারতের চেয়ে বড়ো বাজার আর কোথাও নেই। মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির মধ্যে ভারতীয় বাজার ধরার প্রতিযোগিতা যে কারণে নিরন্তর বাড়ছে। এই অমোঘ সত্যটি বুঝেছে টেক জায়ান্ট অ্যাপলও।

২০১৯-এর দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেও সারা বিশ্বে স্মার্টফোনের শিপমেন্ট কমেছে ১.২ শতাংশ। এই টানা সাতটি ত্রৈমাসিকে কমল স্মার্টফোনের শিপমেন্ট। কাউন্টারপয়েন্ট গবেষণা অনুযায়ী এই তথ্য় যখন স্মার্টফোন সংস্থাগুলির কাছে বেদনার, তেমন একটা সময়ে ভারতের বাজার আশা জাগিয়ে চলছে নিরবচ্ছিন্ন ভাবেই।

২০১৬ সালের মে মাস নাগাদ অ্যাপেলের এক দল প্রতিনিধি ভারতে আসেন। সে সময় তাঁদের হাতে উঠে আসা তথ্য বলছিল, ভারতে ৪৫ কোটি মানুষের হাতে স্মার্টফোন রয়েছে। কিন্তু বছর তিনকে বাদে সেই ছবিটা আমূল বদলে গিয়েছে। এ দেশে এখন স্মার্টফোনের কম্পাউন্ড অ্যানুয়াল গ্রোথ রেট বা সিওজিআর ১২.৯ শতাংশ। অ্যাসোচেম-পিডব্লিউসি-র যৌথ সমীক্ষা অনুযায়ী জানা গিয়েছে, এ ভাবে চলতে থাকলে আগামী ২০২২ সালে ভারতে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ঠেকবে ৮৫.৯ কোটিতে। স্বাভাবিক ভাবেই অ্যাপেল কি আরও শক্ত হাতে ধরতে চাইবে না এই ক্রমশ ফুলতে থাকা ভারতীয় বাজার।

সংস্থার পরিকল্পনা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সেই দিন আর খুব বেশি দূরে নয় যখন অ্যাপল ভারতের বাজারে নিজস্ব ব্র্যান্ডযুক্ত স্টোরগুলি নিয়ে নিজের শক্তি প্রকাশ করবে এবং সংস্থাটি স্থানীয়ভাবে নতুন আইফোন উৎপাদন পুরোদমে শুরু করবে।

অ্যাপলের সিইও টিম কুক সংবাদ সংস্থা আইএএনএস-কে জানান, ভারতে আমাদের ব্যবসা আবার ফিরে আসছে। শেষ ত্রৈমাসিকে আমরা ভাল ফল করেছি।

কুক বুঝতে পেরেছিলেন যে, নতুন আইফোনের চড়া দাম ভারতীয়দের হাতে তাঁদের সস্তার স্মার্টফোনগুলিকে ধরে রাখতে বাধ্য করছে। তার জন্য ভারতর মতো একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বাজার ধরতে তাঁরা নিয়ে ফেলেছেন দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা।

তিনি বলেন, “আমরা ভারতে খুচরা দোকান রাখতে চাই। এবং আমরা সেই ধরনের খুচরো ব্যবসার অনুমোদনের জন্য সরকারের সঙ্গে কাজ করছি। আমরা আমাদের সমস্ত শক্তি দিয়ে পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি …”।

সেই লক্ষে অ্যাপল ইতিমধ্যে বেঙ্গালুরুতে সরবরাহকারী সংস্থা উইস্ট্রনের সহযোগিতায় আইফোন৭- এর অ্যাসেম্বলিং শুরু করেছে।

অ্যাপলের সিএফও লুকা মায়েস্ট্রির মতে, তাঁদের সংস্থা জুনের ত্রৈমাসিকে বাজারে বেশ কয়েকটি বড়োসড়ো রেকর্ডও তৈরি করে ফেলেছিল।

তবে ভারতের বাজারে চিনা আধিপত্যে দখল নেওয়ার পরিকল্পনা অ্যাপল কষে ফেলেছিল সেই ২০১৬ সালেই। তার ফলশ্রুতিতে ২০১৭-য় অ্যাপেল প্রথম ভারত থেকে কর্মী নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সুযোগ পেয়েছিল ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি হায়দরাবাদ (IIITH)।

পড়তে পারেন: দিওয়ালিতে আলোকিত হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে Tata Capital থেকে Mahindra Finance

নতুন আইফোন, অ্যাপল ওয়াচ অথবা আইপ়ডের মধ্যে দিয়ে সংস্থা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাবে, তেমন চিন্তাভাবনা নিয়েই এ ধরনের অজস্র পদক্ষেপ নিয়ে চলেছে অ্যাপল।

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.