লকডাউন বাড়তে থাকলে ২০২১ তলানিতে ঠেকবে ভারতীয় অর্থনীতির বৃদ্ধি, মত বিশ্ব ব্যাঙ্কের

নয়াদিল্লি : করোনাভাইরাস মহামারীর জেরে মারাত্মক ধাক্কা খাবে ভারতীয় অর্থনীতি। রবিবার এক রিপোর্টে এমনটাই জানিয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ক। কোভিড ১৯ জেরে ২০২১-এর আর্থিক বৃদ্ধি ১.৫ শতাংশে নেমে যেতে পারে বলে ওই রিপোর্টে জানানো হয়েছে।

বিশ্ব ব্যাঙ্কের অনুমান ২০২১ সালে ভারতীয় অর্থনীতি নিম্নমুখী হয়ে ২.৮ শতাংশে নেমে আসবে।

দেশ জুড়ে লকডাউনের জেরে দেশে চাহিদা এবং সরবরাহ ব্যাপক ভাবে ব্যাহত হয়েছে। শুধু দেশে নয় এই পরিস্থিতি বিশ্ব জুড়ে। তাই বিনিয়োগকারীরা নতুন করে বিনিয়োগের ঝুঁকি নিতে চাইবেন না। এর ফলে দেশে বিনিয়োগের পুনরুজ্জীবন বিলম্বিত হবে।

যদিও বিশ্ব ব্যাঙ্ক জানিয়েছে, ২০২২ আর্থিক বৃদ্ধি ৫শতাংশে ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশ্ব ব্যাঙ্কের দক্ষিণ-এশিয়ার মুখ্য অর্থনীতিবিদ হান্স টিমার রয়টারকে এক টেলিফোন সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে ভারতের দৃষ্টিভঙ্গী খুব একটা আশাপদ নয়। যদি লকডাউন আরও বাড়তে থাকে তবে তার আর্থিক ফল অনুমানের থেকে আরও খারাপ হবে।

যদি ব্যাপক হারে সংক্রমণ রুখে দেওয়া সম্ভব হয় এবং ধাপে ধাপে পণ্য ও মানুষের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া যেতে পারে, তবেই ২০২১ আর্থিক বছরে বৃদ্ধি ৪ শতাংশে পৌঁছতে পারে। কিন্তু যদি দেশজুড়ে লকডাউন চলতে থাকে তবে বৃদ্ধি ১.৫ শতাংশের চেয়েও খারাপ হবে বলে মনে করছে বিশ্ব ব্যাঙ্ক।

সমাধান কোন পথে?

টিমারের মতে, ভারতের উচিত রোগটি নিয়ন্ত্রণ করায় মনোনিবেশ করা এবং প্রত্যেকের প্রর্যাপ্ত খাবার রয়েছে তা নিশ্চিত করা। স্থানীয় ক্ষেত্রে অস্থায়ী কর্মসংস্থান কর্মসূচিতে জোর দেওয়া। দেউলিয়া হয়ে যাওয়া এমএসএমইগুলিকে পুনরুজ্জীবন করা। এমনটা করতে পারলে ভারতীয় অর্থনীতি রাজস্বগত ভাবে এবং সামাজিক ভাবে আবার কিছুটা হলেও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারে।

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.