শেয়ার বাজারের আত্মবিশ্বাস ফেরাতে সম্বল এখন সরকারি প্যাকেজ

বিবিডেস্ক: করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের জেরে দেশের ৭৫টি জেলায় লক ডাউনের পাশাপাশি ট্রেন এবং বাস চলাচল আগামী ৩১ মার্চ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। যদিও শেয়ার বাজারের কেনাবেচা অব্যাহত থাকবে বলে রবিবার জানিয়ে দেয় স্টক এক্সচেঞ্জ। স্বভাবতই কোভিড-১৯ আতঙ্কে যা হওয়ার সেটাই হল সোমবারের শেয়ার বাজারে।

প্রচুর বিক্রির সৌজন্যে তাসেরঘরের মতো ধস নামে সমস্ত স্টকের দামে। একাধিক স্টক ৫২ সপ্তাহের সর্বনিম্ন অবস্থানে পৌঁছায়। বেঞ্চমার্ক সূচকগুলি বাজার খোলার প্রথম কয়েক মিনিটেই লোয়ার সার্কিটটিকে আঘাত করে ৪৫ মিনিটের জন্য কেনাবেচা বন্ধ হয়ে যায়।

সেনসেক্স ২,৯৯১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২৬,৯২৪ , নিফটি ৮২৪ পয়েন্ট কমে ৭,৯০৩ পয়েন্টে গিয়ে ঠেকে। এই সময়ের মধ্যেই এ দেশের শেয়ার বাজার থেকে ১০,০০০০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ উবে যায়।

দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে এ দিন সেনসেক্স এবং নিফটি বন্ধ হয় যথাক্রমে ২৫,৯৮১ এবং ৭,৬১০ পয়েন্টে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকা করোনাভাইরাস সংক্রমণ ইদানীং কপাল চিন্তার ভাঁজ চওড়া করেছে। এরই মধ্যে লক ডাউনের জেরে দেশের বেশ কয়েকটি বৃহত্তম সংস্থা নিজেদের উৎপাদন স্থগিত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় সেই দুশ্চিন্তা আরও বিস্তার লাভ করছে।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বাজারের এই ভারসাম্যহীন অবস্থান অব্যাহত থাকবে। কারণ ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে শেয়ার বিক্রির চাপ বাড়বে। একই সঙ্গে বাজারের হাল ফেরাতে সরকারের তরফে প্যাকেজে ঘোষণার দিকেও তাকিয়ে রয়েছে অনেকে। স্বাভাবিক ভাবেই দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পর এখন সম্বল এই একটিই বিষয়।

সূত্রের খবর, আগামী ২৪ এবং ২৬ মার্চ ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক (আরবিআই) দুচি ধাপে ৩০,০০০ কোটি টাকার সরকারি বন্ড কিনছে। ব্যাঙ্কগুলির মাধ্যমে এই বিশাল অঙ্কের টাকা বাজারের হাল ফেরাতে কোনো সদর্থক ভূমিকা নেয় কি না, এখন সেটাই দেখার।

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.