Loan moratorium: কিস্তি স্থগিতের সময় সুদের উপর সুদ, জরিমানা নেওয়া যাবে না, বলল সুপ্রিম কোর্ট

“কিস্তি স্থগিতের সময় ঋণগ্রহীতাদের কাছ থেকে কোনো যৌগিক সুদ, জরিমানা নেওয়া হবে না, ইতিমধ্যে আদায় করা টাকাও তাঁদের ফেরাতে হবে”।

নয়াদিল্লি: করোনা লকডাউনের কারণে ঋণের কিস্তির উপর মোরাটোরিয়াম বা স্থগিতের সুযোগ দিয়েছিল ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এবং কেন্দ্রীয় সরকার। ২০২০ সালের ৩১ আগস্টের পর সেই সুবিধার মেয়াদ না বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে নীতিগত হিসেবে আখ্যা দিয়ে এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে অস্বীকার করল সুপ্রিম কোর্ট।

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট জানায়, “কিস্তি স্থগিতের সময় ঋণগ্রহীতাদের কাছ থেকে কোনো যৌগিক সুদ, জরিমানা নেওয়া হবে না, ইতিমধ্যে আদায় করা টাকাও তাঁদের ফেরাতে হবে”।

সর্বোচ্চ আদালত আরও বলেছে, আর্থিক নীতিগত সিদ্ধান্তের কোনো বেনিয়ম না হলে সে বিচার বিভাগীয় ভাবে তার পর্যালোচনা করা যায় না। কোভিড মহামারির পরিপ্রেক্ষিতে রিয়েল এস্টেট এবং বিদ্যুৎ ক্ষেত্রের তরফে স্বস্তি চেয়ে বিভিন্ন সংস্থার আবেদনের শুনানির সময় এহেন মন্তব্য করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

লোন মোরাটোরিয়াম কী?

করোনাভাইরাস মহামারির (Coronavirus pandemic) কারণে ঋণের কিস্তির উপর ছ’মাসের মোরাটোরিয়াম বা ইএমআই স্থগিতের অনুমোদন দিয়েছে আরবিআই।

করোনাভাইরাস লকডাউনের জেরে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অনুমোদনের ভিত্তিতে ব্যাঙ্ক এবং অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি গ্রাহকের ইএমআইয়ের উপর মোরাটোরিয়ামের সুবিধা দেয়। দু’টি পর্যায়ে মোট ছ’মাসের জন্য এই সুবিধার মেয়াদ শেষ হয় ৩১ আগস্ট।

লকডাউনে ঋণগ্রাহকদের স্বস্তি দিতে আরবিআই ১ মার্চ থেকে ৩১ মে পর্যন্ত ইএমআই স্থগিতের অনুমোদন দেয়। এর পর ফের ২২ মে তিন মাসের জন্য সেই সুবিধা বাড়ানো হয়।

এক দিকে অনাদায়ী ঋণ অন্য দিকে মহামারির কারণে ব্যবসায় জোরালো প্রভাব পড়ার কারণে একাধিক সমস্যার মুখে পড়েছে দেশের ব্যাঙ্কিং সেক্টর। দু’টি পর্যায়ে মোরাটোরিয়াম ব্যাঙ্কের উপর বিশাল চাপের সৃষ্টি করে। তবে তার পরেও মোরাটোরিয়ামের মেয়াদ বাড়ানোর দাবি উঠেছিল।

সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা

পরে আরবিআইয়ের জারি করা সময়কালে ঋণের পরিমাণের উপর সুদ আদায় নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল। একাধিক শুনানির পরে, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সুপ্রিম কোর্টকে জানানো হয়, ২ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণগ্রাহকদের মোরাটোরিয়াম পর্বে সুদের উপর সুদে ছাড় দেওয়া হবে। এবং যাঁদের কাছ থেকে আদায় করা হয়েছিল, তা ফেরানো হবে।

এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য কেন্দ্র যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

আরও পড়তে পারেন: অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে মৃত্যু! আত্মীয়স্বজনের বিমার দাবি অস্বীকার সুপ্রিম কোর্টে

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.