সরকারি ব্যাঙ্কের জন্য বাজেটে আর মূলধনের সংস্থান রাখছেন না অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ

বিবি ডেস্ক : আসন্ন বাজেটে সরকারি ব্যাঙ্কের জন্য আর মূলধনের সংস্থান রাখছে না সরকার। তার বদলে অনাদায়ি ঋণ আদায়ের উপর জোর দিয়ে, বাজার থেকে তহবিল সংগ্রহ করে মূলধন যোগানের উপর ব্যাঙ্কগুলিকে বলবে সরকার। এছাড়াও সূত্রে জানা গিয়েছে ব্যাঙ্কগুলিকে নন-কোর ব্যবসায় অংশ বিক্রি করে ২০২০-২১-এ তহবিল সংগ্রহের জন্য সরকার বলবে।

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ দ্বিতীয় দফার মোদী সরকারের দ্বিতীয় বাজেট পেশ করবেন ১ ফেব্রুয়ারি।

সূত্রে জানিয়েছে, বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্কের শেয়ারদর লাগাতার বাড়ার ফলে, তাদের কাছে সুযোগ তৈরি হয়েছে ক্রমশ সরকারি হোল্ডিংকে কমিয়ে ফেলার।

দেশের সবচেয়ে বড় ঋণদানকারী ব্যাঙ্ক এসবিআই ইতিমধ্যে প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে এসবিআই কার্ড এন্ড পেমেন্ট সার্ভিস লিমিটেড এবং ইউটিআই মিউচ্যুয়াল ফান্ড থেকে তাদের অংশ কমিয়ে ফেলতে।
একই ধরনের পদক্ষেপ নিতে চলেছে আরও কয়েকটি সরকারি ব্যাঙ্ক।

২০১৯-এর আগস্ট মাসে সরকার ব্যাঙ্ক মেগা সংযুক্তিকরণের ঘোষণা করে সরকার। সংযুক্তিকরণের পর ব্যাঙ্কগুলি যাতে সুষ্ঠভাবে চলতে পারে তারজন্য ইতিমধ্যে ৬৮,৮৫৫ কোটি টাকা দিয়েছে সরকার।

এরমধ্যে পঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্ক পেয়েছে ১৬,০৯১ কোটি, ইউনিয়ান ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ১১,৭৬৮কোটি, কানারা ব্যাঙ্ক ৬,৫৭১কোটি এবং ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক ২,৫৩৪ কোটি টাকা।

সংযুক্তিকরণ করা হয়েছে যে ব্যাঙ্কগুলির সঙ্গে তারমধ্যে এলাহাবাদ ব্যাঙ্ক পেয়েছে ২,১৫৩ কোটি, ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ১,৬৬৬ কোটি এবং অন্ধ্র ব্যাঙ্ক পেয়েছে ২০০কোটি।

এছাড়া ব্যাঙ্ক অফ বরোদা পেয়েছে ৭০০০কোটি, ইন্ডিয়ান ওভাসিজ ব্যাঙ্ক ৪,৩৬০কোটি ইউকো ব্যাঙ্ক ২১৪২কোটি, পঞ্জাব এন্ড সিন্ধ ব্যাঙ্ক ৭৮৭কোটি এবং সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ৩৩৫৩কোটি টাকা। এছাড়া এলআইসি নিয়ন্ত্রিত আইডিবিআই ব্যাঙ্কও ৪,৫৫৭ কোটি টাকা।


সূত্র : বিজনেস টুডে

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.