আয় বাড়াতে জিএসটি স্ল্যাবে বদল আনতে পারে কাউন্সিল

বিবিডেস্ক : আয় বাড়ানোর লক্ষ্যে জিএসটি স্ল্যাব কামাতে পারে কেন্দ্র। বর্তমানে জিএসিটি স্ল্যাব রয়েছে ৫,১২, ১৮ এবং ২৮ শতাংশ। একে কমিয়ে তিনটে স্ল্যাবের মধ্য আনার পরিকল্পনা রয়েছে জিএসটি কাউন্সিলের।

এই তিনটি স্ল্যাব হল ৮, ১৮ এবং ২৮ শতাংশ। হিন্দুস্থান টাইমসকে এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে সকলেই একমত। এর পাশাপাশি আয় বাড়াতে বেশ কয়েকটি পণ্য এবং পরিষেবার কর বাড়তে চায় কেন্দ্র যেগুলি প্রথামিক ভাবে উচ্চবিত্তরা ব্যবহার করেন।

এই তালিকায় রয়েছে, ব্র্যান্ডেড মোবাইল ফোন, পিৎজা, বিমান পরিষেবা, বাতানুকূল রেলভ্রমণ, ক্রজ পরিষেবা, বেশি দামে হাসপাতাল রুম, ব্র্যান্ডেড পোশাক এবং ফাইন ফেব্রিক। পণ্য এবং পরিষেবা কর থেকে আয় বাড়াতে এগুলির কর বাড়ানো হতে পারে।

এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‘এগুলি সাধারণ মানুষ ব্যবহার করেন না, তাই এ সবের উপর ৫ এবং ১২ শতাংশ কর চাপানোর কোনো যুক্তি নেই। বেশ কয়েকটি রাজ্য এগুলির উপর ৮ বা ১২ শতাংশ কর চাপিয়ে আয় বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে।’’

অন্য এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, রাজ্যগুলি আরও প্রস্তাব দিয়েছে জিএসটি-কে আরও সরলীকরণ করতে স্ল্যাব কমিয়ে শুধুমাত্র তিনটের মধ্যে রাখতে।

১৮ ডিসেম্বর জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠক রয়েছে। সেই বৈঠকে এই নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এ বছর জুলাই মাসের থেকে জিএসটি আদায় উল্লেখযোগ্য ভাবে কমতে থাকে। আয় বাড়লে সঠিক সময় রাজ্যগুলিকে ক্ষতিপূরণও দেওয়া সম্ভব হবে। ইতিমধ্যেই একাধিক রাজ্য ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে। কারণ, জিএসটি চালুর পর রাজ্যগুলিকে আশ্বাস দেওয়া হয় বছরে ১৪ শতাংশ আয় বাড়বে।

জিএসটি আইন অনুযায়ী বিলাসবহুল পণ্য ও পরিষেবার উপরে আয় বাড়লে রাজ্যগুলিকে ক্ষতিপূরণ সেস দেওয়া হবে, তাদের আয়ের ঘাটতি পূরণের জন্য।

Be the first to comment

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.