বাড়ি তৈরির ইচ্ছায় ধাক্কা, দাম বাড়ছে সিমেন্টের

cemet

ক্রমবর্ধমান মূল্যস্ফীতির মধ্যে, একটা স্বপ্নের বাড়ি তৈরির ইচ্ছাও ধাক্কা খাচ্ছে। কারণ গত মাসের তুলনায় সিমেন্ট উৎপাদনকারী সংস্থাগুলি এর দাম ১২ থেকে ১৩ শতাংশ বাড়িয়েছে। সিমেন্টের দাম বাড়ার কারণ বিলম্বিত বর্ষা।

চলতি বছরের প্রথমার্ধে চাহিদা এবং মুনাফায় ভালো বৃদ্ধি দেখেছে ভারতের সিমেন্ট বাজার। একই সঙ্গে শেয়ার বাজারের আবেগের উপর ভর করে এই সেক্টরের আরও বৃদ্ধিও দেখতে পারে।
সর্বভারতীয় ভিত্তিতে, এপ্রিল থেকে আগস্টের মধ্যে দাম প্রায় ২.৫ শতাংশ কমেছিল। কিন্তু সেপ্টেম্বরে প্রবণতা বিপরীতমুখী হয়েছে।

আইসিআইসিআই সিকিউরিটিজের একটি রিসার্চ রিপোর্ট বলছে, “পূর্ব ভারতকে সামনে রেখে উত্তর এবং মধ্য ভারত সম্প্রতি প্রতি বস্তা সিমেন্টের দাম প্রায় ১০-১৫ টাকা বৃদ্ধির প্রবণতা ধরা পড়েছে। অক্টোবরে দক্ষিণ ও পশ্চিম ভারতেও দাম বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে”।

CNBC-TV18-এর সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে, কেসোরাম ইন্ডাস্ট্রিজের সর্বক্ষণের ডিরেক্টর এবং সিইও পি রাধাকৃষ্ণন এবং আইসিআইসিআই সিকিউরিটিজের বিশ্লেষক নবীন সাহাদেও দেশের সিমেন্ট সেক্টরের বর্তমান পরিস্থিতির উপর বিশদ আলোচনা করেন। রাধাকৃষ্ণান বলেন, “আমরা দক্ষিণ ভারতীয় বাজারে প্রতি বস্তায় প্রায় ৩০ থেকে ৪০ টাকা দাম বাড়ানোর কথা ভাবছি”।

এই বৃদ্ধির কারণে, ভারত জুড়ে সিমেন্টের গড় দাম ৫০ কেজি বস্তার জন্য অন্তত ৩৮২ টাকায় পৌঁছেছে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলে সিমেন্টের দাম প্রতি বস্তা ৩২৬ টাকা থেকে বেড়ে ৪০০ টাকা হয়েছে। এমনিতে বর্ষাকালে নির্মাণের চাহিদা কম থাকায় দাম কমে। কিন্তু এ বার দাম বেড়েছে।

বর্ষা শেষ হলে সিমেন্টের দাম আরও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ সিমেন্টের চাহিদা বাড়বে। এ ছাড়া কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায় আবারও এর দাম বাড়ছে।

আরও পড়ুন: ৯ লক্ষ টাকার গৃহঋণে মিলবে ভরতুকি! নতুন প্রকল্প আনছে মোদী সরকার

বাংলাবিজে প্রতিবেদনগুলি লেখেন ১০ থেকে ১৫ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন সাংবাদিকরা। সমস্ত তথ্য যাচাই করে তবে বাংলাবিজে প্রতিবেদনগুলি লেখা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.